রথযাত্রা উৎসব বাঙালীর বারো মাসের তেরো পার্বণের অন্যতম

Share your experience
  • 530
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    530
    Shares

রথযাত্রা জগন্নাথ বলরাম সুভদ্রা
রথযাত্রা জগন্নাথ বলরাম সুভদ্রা

রিয়া দাস– আষাঢ় মাসে আয়োজিত একটি অন্যতম প্রধান হিন্দু উৎসব হল রথযাত্রা বা রথ দ্বিতীয়া। কিন্তু বাঙালির প্রিয় এই রথযাত্রাতেও লকডাউনের জন্য সব বন্ধ হয় পড়ল। প্রতি বছর যেরকম ভাবে সমস্ত নিয়ম মেনে রাস্তায় রথ বের হয়, করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে আজ হয়ত সবই বন্ধ।হিন্দুধর্মাবলম্বীদের কাছে রথযাত্রা একটি গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় উৎসব।হিন্দুধর্ম গ্ৰন্থগুলি অধ্যায়ন করলে বিভিন্ন দেবদবীর রথযাত্রার উল্লেখ পাই। তবে সেগুলির মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে আষাঢ় মাসের শুক্লা দ্বিতীয়া তিথিতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ, বলরাম ও ভগিনী সুভদ্রার রথযাত্রা।

 রথের উৎস

রথযাত্রার উৎস সম্বন্ধে দীর্ঘদিন দিন যাবৎ নানা কাহিনী প্রচলিত ।পুরোনো কোনো কোনো লেখায় পাওয়া যায় বৌদ্ধ সামাজিক উৎসবে রথে করে বুদ্ধমূর্তি নিয়ে পথ পরিক্রমা করা হত। ‘ ফা হিয়েনের ভ্রমণ বৃত্তান্তে বৈশাখী পূর্ণিমায় রথযাত্রার কথা পাওয়া যায়। তবে আমাদের ভারতবর্ষে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের সর্বত্র রথারোহী দেবতা হলেন প্রভু জগন্নাথ।রথযাত্রা সম্পর্কে প্রাচীন শাস্ত্রে বর্ণনা করা হয়েছে যে দ্বাপর যুগের শেষ সময়ে সাধুদের রক্ষা, দুষ্টদের দমন ধর্ম স্থাপনের জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণ রূপে পৃথিবীতে এসে ছিলেন। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ জন্মলগ্ন থেকেই বিভিন্ন লীলার মাধ্যমে তার স্বরূপ উন্মোচন করেন। অবশেষে বৃন্দাবন লীলা সমাপ্ত করে দ্বারকায় চলে আসেন ও তিনি সেখানকার রাজা হন। কিন্তু বৃন্দাবন তাঁকে বারবার আকৃষ্ট করেছিল। ভক্তরা রথের রশি ধরে ভগবানকে অনুভব করে। আর পরম দয়ালু জগন্নাথ ভক্তদের জন্ম মৃত্যু বন্ধন থেকে মুক্তি দেয়। ভক্তদের মোক্ষ লাভ হয়।

বাংলায় রথযাত্রা

রথযাত্রা আসলে হিন্দু দেবতা জগন্নাথ বলরাম ও সুভদ্রার তিনটি সুসজ্জিত রথে চেপে মাসির বাড়ি যাত্রাকে বোঝায়। মূলত ভারতবর্ষে রথযাত্রার উৎসব অতি প্রাচীন। রথযাত্রা জগন্নাথ দেবের সবথেকে বড় উৎসব। বাংলায়  হুগলী জেলাস্থ শ্রীরামপুর মাহেশে সবচেয়ে প্রাচীনতম আর্কষণীয় ও উল্লেখযোগ্য রথযাত্রা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। গুপ্তিপাড়ায় হয়  দ্বিতীয় বৃহত্তম রথযাত্রা।

রথযাত্রা শব্দের অর্থ

রথ’ শব্দের অভিধানিক অর্থ অক্ষ, যুদ্ধযান বা কোনপ্রকার যানবাহন অথবা চাকাযুক্ত ঘোড়ায় টানা হালকা যাত্রীবাহী গাড়ি। পৌরাণিক কাহিনীতে রথের ব্যবহার দেখা যায় যুদ্ধক্ষেত্রে। মহাভারতে বর্ণিত কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে সেনানায়করা রথে চড়ে নিজরা যুদ্ধ করেছেন এবং সেনাবাহিনীকে পরিচালনা করেছেন। রথের নানা কাহিনী আবার প্রচলিত আছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে রথের শব্দ আবার ভিন্ন। তাদের কাছে রথ একটি কাঠের তৈরি যান, যাতে চড়ে স্বয়ং ভগবান এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াত করেন।

আরও পড়ুন–কোচবিহারের মদনমোহন ঠাকুরের ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রা

রথযাত্রার ইতিহাস

উড়িষ্যার প্রাচীন পুঁথি ” ব্রক্ষ্মান্ড পুরাণ ” এ জগন্নাথদেবের রথযাত্রার ইতিহাস প্রসঙ্গে বলা হয়েছে যে, এই রথ যাত্রার প্রচলন হয়েছিল  সত্যযুগে। মূলত আষাঢ় মাসের শুক্লা পক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে রথ উৎসব হয়ে থাকে। এই দিন দাদা বলরাম ও বোন সুভদ্রার সঙ্গে গুন্ডিচা মন্দিরে যান জগন্নাথ। পুরাবিদেরা বলেন, রাজা ইন্দ্রদ্যুম্নের স্ত্রী ছিলেন গুন্ডিচা। তবে এ নিয়ে পন্ডিতদের মধ্যে মত বিভেদ দেখা যায়।।

তথ্যসূত্র-– আনন্দবাজার পত্রিকা

 

 


Share your experience
  • 530
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    530
    Shares

Facebook Comments

Post Author: রিয়া দাস

রিয়া দাস
রিয়া দাস।ইতিহাসে স্নাতকোত্তরে পাঠরত।ক্ষেত্রসমীক্ষক।