কল্কাত্তাওয়ালি ট্যাংরার কালী

ট্যাংরার কালী চাউমিন খান জয়মা কালী কলকাত্তাওয়ালি

ট্যাংরার কালী চাউমিন খান জয়মা কালী কলকাত্তাওয়ালি।প্রায় ৬০ বছর আগে এখানকার এক স্থানীয় বুদ্ধিস্ট চীনা অভিবাসীর হাতে কালীমন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়। তখন এখানে কেবল রাস্তার ধারে দুটি কালো পাথরের টুকরোকে স্থানীয়রা মা কালীর শিলা বলে ভক্তি করতেন। শোনা যায় প্রতিষ্ঠাতার পুত্র গুরুতর অসুস্থ হলে, ডাক্তার-বদ্যি যখন আশা ছেড়ে দেয়, তখন এই কালী মায়ের কাছে প্রার্থনা করে নাকি, অলৌকিক ভাবে রুগী সেরে ওঠে।লিখছেন–ডা.তিলক পুরকায়স্থ।

হুঁকো

হুঁকো-প্রাচীন কলকাতার বাবু ও সাহেবি কালচারে ধূমপান

হুঁকো-প্রাচীন কলকাতার বাবু ও সাহেবি কালচারে ধূমপান বিলাসিতার অন্ততম অঙ্গ ছিল।হুঁকোর সঙ্গে জড়িয়ে আছে রঙ বেরঙের ইতিহাস।লিখছেন–ডা.তিলক পুরকায়স্থ।

সাবর্ণ রায়চৌধুরীদের আদি নিবাস আমাথি বা আমূল গ্রামে প্রাপ্ত পঞ্চমাতৃকা প্যানেল

সাবর্ণ রায়চৌধুরীদের আদি নিবাস কাটোয়ার আমাথি বা আমূলগ্রাম

সাবর্ণ রায়চৌধুরীদের আদি নিবাস কাটোয়ার আমাথি বা আমূলগ্রাম। এখান থেকে তাঁরা হালিশহর,পরে উত্তরপাড়া বিরাটি বড়িষায় ছড়িয়ে পড়েন।লিখছেন-স্বপনকুমার ঠাকুর।

কালীঘাটের সেকাল একাল-প্রাচীন কলকাতার এক কথকতা

কালীঘাটের মা কালী বা সতীর পদাঙ্গুল উদ্ধারের কাহিনী নিয়ে অসংখ্য গল্প কথা প্রচলিত আছে, বহু সাধক এবং বড় মানুষদের নিয়ে। এর মধ্যে রয়েছে আত্মারাম ও ব্রহ্মানন্দ নামক একজোড়া সাধকের কথা। ব্রহ্মানন্দ নামক এক সাধক নীলগিরি পর্বতের একটি শিলাখন্ড কে মা- কালিকা রূপে নাকি পুজো করতেন, পরে আত্মারাম নামক এক বাঙালি সাধুর পরামর্শে ইনি আনুমানিক ষোড়শ শতাব্দীর শেষভাগে এই মূর্তিটি কালীঘাটের মধ্যে ব্রহ্মার ঢিবি নামক জায়গায় প্রতিষ্ঠা করেন।লিখছেন–ডা.তিলক পুরকায়স্থ

FB.AppEvents.logPageView(); FB.getLoginStatus(function(response) { statusChangeCallback(response); }); { status: 'connected', authResponse: { accessToken: '...', expiresIn:'...', signedRequest:'...', userID:'...' } }