মানভূমের করম পরব

সারা সপ্তাহ ধরে এইসব রীতি-নীতি মেনে চলার পর আসে শুক্লা-একাদশী করম পুজোর দিন।এইদিন মেয়েরা সকাল থেকেই উপবাস থেকে একসাথে জঙ্গলে গিয়ে ফুল তোলে,জাওয়া গীত গাইতে গাইতে সারাদিনব্যাপী চলে নাচ-গান।
সন্ধ্যাবেলায় গ্রামের লায়া (পুরোহিত) একজায়গায় করম ডাল পুঁতে করম ঠাকুরের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করে।তৈরি হয় পুজার বেদী।গ্রামের ব্রতকারী কুমারী মেয়েরা ‘করম ডালায়’ পুজোর অর্ঘ্য রূপে ঘি,গুড়,আতপচাল,মধু,ধুপ,একগাছি ধান আর কাঁকুড় ইত্যাদি নিয়ে সমবেত হয়ে পুজো করে করম ঠাকুরের।কামনা করে সোহাগী স্বামী পাওয়ার ও সন্তানবতী হওয়া…লিখছেন–শুভজিৎ দত্ত